1. admin@sylheterkujkhobor.com : admin :
শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ০৩:১১ অপরাহ্ন

করোনা রোগীকে মারধর, হাসপাতাল কর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা

  • আপডেট সময় : শনিবার, ৩১ জুলাই, ২০২১
  • ১৩২ বার পঠিত

ডেস্কঃ রাজধানীর উত্তরায় শিন জিন জাপান হাসপাতালে এক করোনা রোগীকে আইসিইউ থেকে বের করে এনে মারধর করে হাত ভেঙে দেয়ার পর মারা যাওয়ার অভিযোগে ওই হাসপাতালের কর্মকর্তা অজ্ঞাতনামা বিভিন্ন কর্মকর্তা ও কর্মচারীকে আসামি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মামলার এজাহারটি গ্রহনপুর্বক ঢাকা মহানগর আদালতের হাকিম তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ৯ সেপ্টেম্বর দিন ধার্য করেন।

ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ইয়াসিন গাজি।

তিনি বলেন, গত বুধবার (২৮ জুলাই) জ্যোতি কাস্তা নামের ব্যক্তি তার মেয়ের জামাই মারা যাওয়ার ঘটনায় থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, গত ১৮ জুলাই মামলার বাদীর মেয়ের জামাই সবুজ পিরিস শ্বাসকষ্ট জনিত কারণে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে ঢাকায় নিয়ে স্কয়ার হাসপাতালে করোনা টেস্ট করা হয়। এতে রেজাল্ট পজিটিভ আসে। তবে স্কয়ার হাসপাতালের -আইসিইউ বেড খালি না পাওয়ায় থাকে ইউনাইটেড এবং পরে এপোলো হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু সেখানেও আইসিইউ খালি নেই বলে জানতে পারেন।

পরে বাদী আইসিইউর জন্য ঘুরাঘুরি করে কোথাও উপায় না পেয়ে অজ্ঞাত দালালদের মাধ্যমে উত্তরা পশ্চিম থানাধীন ১১ নম্বর সেক্টরের গরীবে নেওয়াজ এভিনিউয়ে শিন- জিন জাপান হাসপাতালে খোজ নিলে আইসিইউ খালি আছে বলে জানতে পারেন। তাদের তথ্যের ভিত্তিতে বাদীর মেয়ের জামাইকে শিন জিন জাপান হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানে হাসপাতালের কর্তৃপক্ষ প্রতিদিন আইসিইউ বেড বাবদ ভাড়া ৩৫ হাজার টাকা সহ ওষুধ ও অন্যান্য খরচ বহন করতে হবে বলে জানানো হলে এই অতিরিক্ত খরচের বিষয়টি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে অবগত করে কিছু টাকা কম নিতে বললে তারা দুর্ব্যবহার করেন।

পরে সবুজকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ নানা অজুহাতে চিকিৎসার জন্য অতিরিক্ত অর্থ দিতে বাধ্য করে। এছাড়া শিন জিন জাপান হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সঠিক চিকিৎসা না করে সবুজের শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটান।

মামলা অভিযোগে আরও উল্লেখ করা হয়, গত ২১ জুলাই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বাদীকে জানান, জরুরি ভিত্তিতে রোগীকে এভাস্টিন ইনজেকশন দিতে হবে এবং এজন্যি আশি হাজার আটশত টাকা লাগবে। এরপর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তথ্যমতে ধানমন্ডি থেকে এই ইনজেকশন সংগ্রহ করে জমা দেয়া হয়। এই ইনজেকশন দেয়ার পর থেকে সবুজ অসংলগ্ন আচরণ করতে থাকেন। এ বিষয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে জানানো হলেও তারা কোনো গুরুত্ব দেয়নি।

এরপর গত ২৩ জুলাই রাতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বাদীকে ফোন দিয়ে জানান, সবুজ আইসিইউতে কর্মরত নার্স ও ওয়ার্ড বয়কে চাকু দিয়ে আঘাত করেছে। তারপর বাদী হাসপাতালে গিয়ে দেখেন তার জামাই সবুজকে হাসপাতালের আইসিইউ কক্ষের সম্মুখে ফাঁকা জায়গায় বেডের সঙ্গে হাত-পা বাঁধা এবং তার শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ক্ষত ও কালো দাগযুক্ত আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

পরে বাদী জানতে পারেন, হাসপাতালের অজ্ঞাত কর্মকর্তা-কর্মচারীরা তার মেয়ের জামাইকে আইসিইউ থেকে বের করে এনে এলোপাতাড়ি মারধর করেন। এতে তার ডান হাতের হাড় ভেঙে যায়। এছাড়া বাম হাতের কব্জি খুলে যায় এবং শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম হয়। পরে গত ২৬ জুলাই সবুজ গুলশানের ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। এ ঘটনায় রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানায় জ্যোতি কস্তা বাদী হয়ে পেনাল কোড ৩০২ ধারায় মামলা দায়ের করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© All rights reserved © 2021 sylheter kuj khobor.com
Theme Customized By BreakingNews