1. admin@sylheterkujkhobor.com : admin :
মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ০৪:৫৪ অপরাহ্ন

জমিজমা নিয়ে ভাই-বোনের সালিস, হামলায় একজনের মৃত্যু

  • আপডেট সময় : শনিবার, ২৬ জুন, ২০২১
  • ১৭৭ বার পঠিত
এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্র জানায়, পাড় ডাকুয়া গ্রামের মৃত চান্দু মীরের বড় ছেলে জসিম মীর (৪৫) ও মেয়ে হেলেনা বেগমের (৩৫) মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। রাঙ্গাবালী উপজেলায় হেলেনার বিয়ে হয়েছিল। সেখানে নদীভাঙনের শিকার হয়ে বসতভিটা হারিয়ে তিনি পরিবার নিয়ে বাবার বাড়িতে ওঠেন। এরপর থেকেই তিনি পৈতৃক সম্পত্তির ভাগ দাবি করে আসছিলেন। এ নিয়ে আজ সকালে পৈতৃক বাড়িতে ভাই-বোনের দুই পরিবার আত্মীয় ও স্থানীয় ব্যক্তিদের নিয়ে সালিস বসে।

এই হামলায় অন্তত পাঁচজন আহত হন। এর মধ্যে ধলাই মীর ও মাইনুদ্দিন নামের আরেকজনকে বরিশাল নেওয়ার পথে ধলাই মীর দুমকি উপজেলার লেবুখালী ফেরিঘাট এলাকার কাছে মারা যান।

সালিসে ছিলেন এলাকার বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম। তিনি বলেন, তাঁরা দুই পক্ষকে নিয়ে সালিস বৈঠকে বসেছিলেন। সিদ্ধান্ত ছাড়াই বৈঠক শেষে লোকজনদের চা-পান দিয়ে আপ্যায়ন শেষে তাঁরা বিদায় নেন। এরপরই হামলার ঘটনা ঘটে।

হেলেনা বেগম বলেন, নিহত ধলাই মীর তাঁদের চাচাত ভাই। সালিসে তাঁর পক্ষে কথা বলায় ধলাই মীরের ওপর তাঁর ভাইয়ের ছেলে মিরাজ মীরের (১৯) নেতৃত্বে হামলা চালানো হয়। এই হামলায় অন্তত পাঁচজন আহত হন। এর মধ্যে ধলাই মীর ও মাইনুদ্দিন নামের আরেকজনকে বরিশাল নেওয়ার পথে ধলাই মীর দুমকি উপজেলার লেবুখালী ফেরিঘাট এলাকার কাছে মারা যান। অন্য গুরুতর আহত মাইনুদ্দিনকে বরিশালের শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

তবে জসিম মীর তাঁর ছেলের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘ওরা নিজেরা নিজেরাই মারামারি করেছে। আমি বা আমার ছেলে এখানে জড়িত না।’

গলাচিপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শওকত আনোয়ার রাত পৌনে ৯টার দিকে বলেন, দুই ভাই-বোনের সালিস বৈঠকে হামলায় তাঁদের চাচাতো ভাই নিহত হয়েছেন। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পটুয়াখালী হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। তবে তখনো কোনো মামলা হয়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© All rights reserved © 2021 sylheter kuj khobor.com
Theme Customized By BreakingNews