1. admin@sylheterkujkhobor.com : admin :
বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ০৭:৫৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
সিলেটে প্রতিদিন ক্ষতি আড়াই কোটি টাকা সিলেট নগরীতে রাস্তার মাঝখানে ‘বিপজ্জনক’ গর্ত ঘুমে আছে সিটি করপোরেশন শোকাবহ আগস্টে সিলেট জেলা তাঁতী লীগের মাসব্যাপী কর্মসূচি ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক ৬ লেন করার অনুমােদন বিএনপি এই নির্বাচনে না আসলে আবারও ট্রেন মিস করবে- বিশ্বনাথে আহমদ হোসেন ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের নবগঠিত কমিটির আনন্দ মিছিল সিলেট জেলা তাঁতী লীগের কার্যকরী সভা, শোকাবহ আগস্টের কর্মসূচি গ্রহণঃ জেলা তাঁতী লীগের কার্যকরী সভা, শোকাবহ আগস্টের কর্মসূচি গ্রহণঃ অ্যাপস দিয়ে সিলেটের সকল থানার জিডি করা যাবে অনলাইনে দক্ষিণ সুরমায় সেচ্ছাসেবক লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

ফেঞ্চুগঞ্জে পিয়নের দায়ের কোপে আশার ব্র্যাঞ্চ ম্যানেজার খুন

সিলেটের খোঁজখবর
  • আপডেট সময় : সোমবার, ১৮ জুলাই, ২০২২
  • ৫৫ বার পঠিত

ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলায় এনজিও প্রতিষ্ঠান আশার ব্র্যাঞ্চ ম্যানেজার মো. আবুল কাশেম খুন হয়েছেন। অফিসের পিয়ন কাম বাবুর্চি ফজল আহমদের দায়ের এলোপাতাড়ি কোপে নির্মমভাবে খুন হন তিনি। 

খুন হওয়া মো. আবুল কাশেম হবিগঞ্জ জেলার চুনারুঘাট উপজেলার কবিলাশপুর গ্রামের মৃত আলহাজ্ব আব্দুর রহিমের পুত্র। ঘাতক পিয়ন সিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলার পিরেরচক গ্রামের মৃত শরীফ উদ্দিনের ছেলে ফজল আহমদ।
হত্যাকাণ্ডের ঘটনাটি ঘটেছে রোববার (১৭ জুলাই) সকাল ১১টা থেকে ১২টার মধ্যে কোন এক সময়ে উপজেলার মাইজগাঁও ইউনিয়নের সারকারখানা পুরানবাজার ব্র্যাঞ্চ অফিসে।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ফেঞ্চুগঞ্জ থানা পুলিশ, পিবিআই ও সিআইডি ঘটনাস্থলে অবস্থান করছেন। লাশের সুরতহাল রিপোর্ট ও ঘটনার মোটিভ উদঘাটনে কাজ করছেন তারা।

অফিসের সেকেন্ড ম্যানেজার মুহিবুল ইসলাম জানান, প্রতিদিনের ন্যায় আজ সকাল সাড়ে ৮টায় আমরা সবাই অফিসে যাই এবং সকাল সাড়ে ১০টায় ম্যানেজারের সাথে দিনের কাজের বিস্তারিত জেনে সবাই ফিল্ড ওয়ার্কে বের হই। এ সময় অফিসে ছিলেন ম্যানেজার মো. আবুল কাসেম ও পিয়ন ফজল আহমদ। ফজল অফিসে পিয়ন কাম বাবুর্চির দায়িত্বে ছিলেন। ম্যানেজার ও পিয়নের মধ্যে পূর্বে কোন বিষয়ে কোন মতানৈক্য দেখতে পাননি তিনি। এমনকি শনিবার ঈদের ছুটিকালীন সময়ে অফিসে অবস্থান করায় অবস্থান ভাতাও হাসিমুখে গ্রহণ করেন পিয়ন ফজল। হঠাৎ কেন খুনের মতো এমন ঘটনা ঘটলো এর কোন কারণ খোঁজে পাচ্ছেন না বলে জানালেন সেকেন্ড ম্যানেজার মুহিবুল।

এ ব্যাপারে ফেঞ্চুগঞ্জ থানার ওসি শাফায়েত হোসেন জানান, প্রাথমিক তদন্তে পিয়ন ফজল আহমদ প্রধান হত্যাকারীকে আটক করতে পুলিশের বিভিন্ন টিম মাঠে রয়েছে।

ম্যানেজারকে তাঁর অফিকক্ষে গাছ কাটার দা দিয়ে মাথায়, গাড়ে এবং ছোঁয়ালসহ বিভিন্ন স্থানে এলোপাতাড়িভাবে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয়েছে হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত দা।

তিনি আরো জানান, ম্যানেজারের ব্যবহৃত মোবাইল (০১৭৩০৩১৩৫০৮) নাম্বার থেকে সকাল ১০টা ৫৮ মিনিটে শেষ কথা হয়েছে সিলেটের এরিয়া ম্যানেজার আহমদ শরিফ ছাদির ব্যবহৃত মোবাইল (০১৭৩৬৬০৬৮১১) নাম্বারে।

স্থানীয়রা জানান, একজন ভালো এবং সামাজিক মানুষ ছিলেন ম্যানেজার মো. আবুল কাসেম। কারো সাথে কোন বিরোধ ছিল এমন খবর জানেন না তারা।




Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর










x