1. admin@sylheterkujkhobor.com : admin :
মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৮:৩৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
সিলেটে তিন ঘন্টা নগরবাসীকে ভূগিয়ে শ্রমিক অবরোধ প্রত্যাহার সিলেটে আয়ার সাথে ক্লিনিক মালিকের পরকিয়া থানায় মামলা আসামীরা পলাতক লালাবাজার ফাজিল (ডিগ্রি) মাদ্রাসার বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগে অপপ্রচার করে ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের প্রতিবাদ সভা বিশ্বনাথে ৪ বছর বয়সে ‘বীর মুক্তিযোদ্ধা’ আগাম নির্বাচনী প্রচার নিয়ে তোলপাড় সৈয়দা সাজেদা চৌধুরীর মৃত্যুতে সিলেট জেলা তাঁতী লীগের শোক প্রকাশ- এডভোকেট নাসির উদ্দিন খান কে জেলা তাঁতী লীগের অভিনন্দন– দক্ষিণ সুরমা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে হয়রানি ভুক্তভোগীদের অভিযোগের পাহাড় লালাবাজারে বাসিয়া নদীতে নতুন সেতু নির্মান দাবী বারবার উপেক্ষিত যৌতুকের মামলায় আগাম জামিন পেলেন ক্রিকেটার আল-আমিন টি২০ থেকে অবসর নিলেন মুশফিক

বিদ্যুৎ চুরির অভিযোগ অবৈধভাবে ভুমি দখলদার জামায়াত নেতার বিরুদ্ধে

সিলেটের খোঁজখবর
  • আপডেট সময় : বুধবার, ৩১ আগস্ট, ২০২২
  • ৫৫ বার পঠিত

ডেস্কঃ অবৈধ সংযোগ দিয়ে বিদ্যুৎ চুরি অভিযোগে মামলা হয়েছে সম্প্রতি। বিল না দিয়ে একই ভবনে নতুন সংযোগ দিয়ে বিদুৎ ব্যবহার করায় একটি নির্মাণাধীণ ভবনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেছে বিদ্যুৎ বিভাগ। এনিয়ে একই ভবনে তিনবার সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হলো। কিভাবে সংযোগ পায় কারা এর সঙ্গে জড়িত সেটি এখনো জানা যায়নি।

তবে ওই মামলায় আসামী করা হয়েছে অবৈধ দখলদার জামায়াত নেতা আইনজীবী সিরাজুল ইসলামের বিরুদ্ধে। বুধবার নগরীর রিকাবীবাজার পুলিশ লাইন গির্জা সমিতির ভবন লুসাই টাওয়ারে অভিযান চালিয়ে অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। ওই ভবনটি দখল করে রেখেছিলেন ওই আইনজীবী।

জানা গেছে, রিকাবীবাজার লুসাই গির্জার জমির মালিক ক্ষুদ্র নৃতাত্বিক জনগোষ্টি লুসাই সম্প্রদায়ের লোকজন। বিগত চারদলীয় জোট সরকারের আমলে প্রতারণার মাধ্যমে গির্জার জমি অবৈধভাবে দখল করেন সিলেট জেলা আইনজীবী সিমিতির সদস্য ও জামায়াত নেতা অ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম। দীর্ঘ আইনী প্রক্রিয়ায় গির্জার ভূমি ফিরে পান লুসাই সম্প্রদায়ের লোকজন।

গত ১৫ জুন বিদ্যুৎ বিক্রয় বিতরণ বিভাগের মোবাইল কোর্ট সিরাজুল ইসলামের নামে বিদ্যুতের লাইনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে। এরপর সহকারী প্রকৌশলী মো. আসিফ জুলকারনাইন বাদি হয়ে গত ৪ আগষ্ট একটি মামলা করেন। মামলায় উল্লেখ করা হয়, ২০১৭ সালের মে থেকে ২০২২ সালের মে পর্যন্ত গ্রাহক নং (৪১৩১৫৪২৫) এই আইডি থেকে বিদ্যুৎ বিল আসে ২ লাখ ৭৫ হাজার ১১৮ টাকা। বিলের ওই টাকা দেওয়ার জন্য তাকে বার বার নোটিশ দেওয়া হয় সিরাজুল ইসলামকে। তিনি বিদ্যুতের বিল না দিয়ে নতুন করে আরেকটি মিটারের মাধ্যমে সংযোগ দিয়ে বিদ্যুৎ ব্যবহার করতে থাকেন।

এ অবস্থায় বিল না দিয়ে অবৈধভাবে অন্য একটি মিটারের মাধ্যমে (নং-৫৩৫১৬৬) ব্যবহার করা হয় ১১ হাজার ৩০৩ ইউনিট বিদ্যুৎ। এতে বিদ্যুৎ বিভাগের ক্ষতি হয় ৩ লাখ ১৪ হাজার ২৬৩ টাকা। গত ৫ বছর ধরে এই মিটারে অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগের মাধ্যমে একটি নির্মাণাধীন ভবন, তিনটি টিনশেড রুমে বিদ্যুত ব্যবহার করা হয়। পাশাপাশি একটি পানির পাম্ম, একটি ফ্রিজ ব্যবহার করা হয় ওই মিটারের মাধ্যমে।

গত ২৬ জুন বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে ভববনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। এ ঘটনায় ৫ লাখ ৮৯ হাজার টাকা বকেয়া এবং ক্ষতিপূরণ আদায়ে মামলা হয়। এই মামলা চলমান অবস্থায় নতুন কনে নির্মাণাধীন গির্জার ভবনে বিদ্যুৎ সংযোগ দিয়ে চলছিল কয়েকটি পরিবারের লোকজন। বুধবার দুপুরে সেই সংযোগও বিচ্ছিন্ন করে বিদ্যুৎ বিভাগ। দুটি মিটারে অবৈধ পার্শ্ব সংযোগে বিদ্যুৎ ব্যবকার করা হচ্ছিল বলে জানা গেছে। এ ব্যপারে বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগ-১ এর সহকারী প্রকৌশলী আসিফ জুলকারনাইন বলেন, আমরা আবারো অভিযান চালিয়ে ওই ভবন থেকে অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেছি। ভবনে অবৈধভাবে বিদ্যুৎ ব্যবহার করায় সেগুলোর সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। এ ঘটনায়ও মামলা প্রক্রিয়াধীন বলে জানান পিডিবির এই কর্মকর্তা।




Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর










x