1. admin@sylheterkujkhobor.com : admin :
সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ০৬:০৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
দক্ষিণ সুরমায় গরু ছিনতাইয়ের ঘটনায় এক ছাত্রলীগ নেতাসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা দক্ষিণ সুরমা উপজেলা প্রেসক্লাবের ২০২৪/২৬ মেয়াদের কমিটি ঘোষনা সভাপতি ফুলর সাধারণ সম্পাদক নুরুল ৬ষ্ঠ উপজেলা নির্বাচনঃ দক্ষিণ সুরমায় ত্রিমুখী লড়াইয়ের আভাস জালালাবাদ থানা রিকশা ও রিকশাভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের মে দিবস পালন দক্ষিণ সুরমা রেস্তোরা মালিক সমিতি’র জরুরী সভা অনুষ্ঠিত গরম থেকে বাঁচতে ট্রাফিক পুলিশদের এসি হেলমেট দিলো পশ্চিমবঙ্গ সরকার দক্ষিণ সুরমা উপজেলা প্রেসক্লাবের সভায় শ্রমিকদের যথাযথ মুল্যায়নের দাবী দক্ষিণ সুরমা উপজেলা নির্বাচনে প্রচার প্রচারণায় এগিয়ে জুয়েল আহমদ যারা কথায় কথায় স্যাংশনস দেয় তারা ঘরে ঢুকে মানুষ হত্যা করে যুক্তরাষ্ট্রকে উদ্দেশ্য করে শেখ হাসিনা সিলেট সিটি কর্পোরেশনের কর্মচারীর ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে আত্মহত্যা

ব্রিজের কাজ না করেই ১৫ লাখ টাকার বিল উত্তোলন করে নিজাম এন্টারপ্রাইজ

সিলেটের খোঁজখবর
  • আপডেট সময় : সোমবার, ২৯ এপ্রিল, ২০২৪
  • ৮৫ বার পঠিত

ডেস্ক: সিলেটের ওসমানীনগরে ব্রিজের কাজ না করেই ১৫ লাখ টাকা তুলে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এক বছর ধরে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ঠিকাদারের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করলেও নানা টালবাহানায় কাজের কথা এড়িয়ে যাচ্ছেন তিনি।

জানা যায়, গোয়ালাবাজার ইউনিয়নের মুতিয়ারগাঁও, হলিমপুর, ভাগলপুর, কলারাইসহ অন্যান্য গ্রামের মানুষ চলাচলের জন্য একটি ব্রিজের দাবি তোলে। যার পরিপ্রেক্ষিতে ২০২২-২৩ অর্থবছরে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের অধীনে প্রায় ৮৬ লাখ টাকা ব্যয়ে ক্ষুদির খালের ওপর ১২ মিটার দৈর্ঘ্যের একটি ব্রিজ নির্মাণের প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়। ২০২৩ সালের জানুয়ারি মাসে কাজটি পায় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান নিজাম এন্টারপ্রাইজ। পুরোনো ব্রিজটি ভেঙে মালপত্র বিক্রি করে দেওয়ার পর নতুন ব্রিজ নির্মাণের জন্য একপাশের বেইজে কাজ শুরু করে প্রতিষ্ঠানটি।

এ সময় ১৫ লাখেরও বেশি টাকার বিল উত্তোলন করা হয়। তবে এর পর থেকেই কাজ নিয়ে শুরু হয় গড়িমসি। পরে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিলেও তারা সাড়া দেয়নি। এ নিয়ে উপজেলা সমন্বয় কমিটির সভায় ক্ষোভও প্রকাশ করেছেন জনপ্রতিনিধিরা।

এদিকে এক বছরেও ব্রিজ নির্মাণ না হওয়ায় দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে এলাকাবাসীকে। উপায়ান্তর না দেখে নিজেদের উদ্যোগে অস্থায়ী বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করেছেন। ব্রিজ না থাকায় পণ্য পরিবহনে সমস্যা হচ্ছে। এদিকে উপজেলা সমন্বয় কমিটির সভায় বিষয়টি তুলে ধরেন গোয়ালাবাজার ইউপি চেয়ারম্যান পীর মো. মজনু মিয়া। বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হলে চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেন উপস্থিত জনপ্রতিনিধিরা।

মুতিয়ারগাঁওয়ের বাসিন্দা তাজ উদ্দিন বলেন, কৃষক এখন বোরো ধান তুলছে। তবে ব্রিজ না থাকায় ধান পরিবহনে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।

গোয়ালাবাজার ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পীর মো. মজনু মিয়া বলেন, দীর্ঘদিন ধরে ব্রিজটি না করায় এলাকার মানুষ কষ্ট পাচ্ছে। সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, প্রয়োজনে বর্তমান ঠিকাদারের ওয়ার্ক অর্ডার বাতিল করে নতুন ঠিকাদার নিয়োগ দেওয়া হবে।

উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা সুহেল রহমান জানান, ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ১৫ লাখের বেশি টাকার বিল উত্তোলন করে নিয়েছে।  একাধিকবার যোগাযোগ করে কোনো ফল না পেয়ে তিনবার কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে। কাজ না করলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের স্বত্বাধিকারী নিজাম উদ্দিন রুকু জানান, কাজটি একজনকে দেওয়া হয়েছিল। তিনি কাজটি ফেলে চলে গেছেন। এখন বিপদে পড়েছেন তিনি ও তাঁর প্রতিষ্ঠান। আগামী সপ্তাহে তিনি ব্রিজটির কাজ শুরু করবেন। সুত্র : সমকাল




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর










x