1. admin@sylheterkujkhobor.com : admin :
সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ১১:০২ পূর্বাহ্ন

সাহেদসহ ১৪ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র আমলে নিলেন আদালত

  • আপডেট সময় : রবিবার, ৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ১৩৭ বার পঠিত
ফাইল ছবি
মামলার অভিযোগপত্রভুক্ত অন্য আসামিরা হলেন মাসুদ পারভেজ, তরিকুল ইসলাম, আহসান হাবিব মজুমদার, হাতেম আলী, রাকিবুল ইসলাম, আবদুস সালাম, আবদুর রশীদ খান, অমিত বণিক, মিজানুর রহমান, শিমুল পারভেজ, দ্বীপায়ন বসু, শায়খুল ইসলাম ও পলাশ আলী। আসামিরা সবাই রিজেন্ট হাসপাতালের কর্মী। এ মামলায় চার আসামি পলাতক। তাঁরা হলেন শিমুল, দ্বীপায়ন, পলাশ ও শায়খু্ল। তাঁদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত।

অভিযোগপত্রে বলা হয়, সাহেদের নির্দেশনায় একটি সংঘবদ্ধ অপরাধী চক্র করোনার ভুয়া সনদ তৈরি করে। পরীক্ষা ছাড়াই ভুয়া সনদ তৈরি ও নমুনা সংগ্রহের জন্য সাহেদ দুটি দল তৈরি করেন। আসামি রাকিবুল, পলাশ, তরিকুল শিবলী ও অমিত বণিক দিনে দুই শর মতো নমুনা সংগ্রহ করতেন। এর মধ্যে ৫০টি নমুনা পরীক্ষার জন্য জাতীয় প্রতিষেধক ও সামাজিক চিকিৎসাপ্রতিষ্ঠানে (নিপসম) পাঠানো হতো। বাকি নমুনাগুলো পরীক্ষা ছাড়াই ভুয়া সনদ তৈরি করতেন তাঁরা।

এর আগে গত ২৮ সেপ্টেম্বর অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলায় সাহেদকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন আদালত। চেক জালিয়াতির মামলায় ২০১০ সালে ঢাকার একটি আদালত সাহেদকে ছয় মাসের সাজা দেন। উত্তরা পশ্চিম থানায় সাহেদের বিরুদ্ধে ১৩টি মামলা আছে। এ ছাড়া সাহেদের বিরুদ্ধে ঢাকাসহ সারা দেশে ৫০টির বেশি মামলা বিচারাধীন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© All rights reserved © 2021 sylheter kuj khobor.com
Theme Customized By BreakingNews