1. admin@sylheterkujkhobor.com : admin :
সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০৪:৩১ অপরাহ্ন

সিলেট ৩ আসনের উপনির্বাচন, নৌকা না লাঙ্গল

  • আপডেট সময় : রবিবার, ২৩ মে, ২০২১
  • ২৩৬ বার পঠিত

খোজ খবর ডেস্কঃ সিলেট ৩ (দক্ষিণ সুরমা, ফেঞ্চুগঞ্জ ও বালাগঞ্জ একাংশ) আসনের সংসদ সদস্য মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর ইন্তেকালে শুন্য হয়ে যাওয়া পদে উপ-নির্বাচনে অংশ নিতে প্রার্থীদের দৌঁড়ঝাাঁপ ইতোমধ্যে শুরু হয়ে গেছে পুরোধমে। প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণার পাশাপাশি কে হচ্ছেন এই আসনের পরবর্তী সংসদ সদস্য এই তর্কে চায়ের কাপে ঝড় তোলছেন সাধারণ ভোটার থেকে শুরু রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ১১ মার্চ সিলেট-৩ আসনের আওয়ামী লীগের দলীয় তিন তিনবারের এমপি মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী ইন্তেকাল করেন। তার মৃত্যুর পর গত ১৫ মার্চ সংসদ সচিবালয়ের পক্ষ থেকে এ আসনটি শূন্য ঘোষণা করা হয়। তবে আসন শুন্য হওয়ার ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচনের বাধ্যবাধকতা থাকলেও করোনার প্রাদূর্ভাবের কারণে তা সম্ভব হয়নি। এমতাস্থায় পরবর্তী ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন করার প্রক্রিয়া শুরু করেছে নির্বাচন কমিশন। গত বুধবার (১৯মে) প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদার সভাপতিত্বে বিকেল ৩টায় কমিশনের সভায় সিলেট-৩ (দক্ষিণ সুরমা, ফেঞ্চুগঞ্জ ও বালাগঞ্জ) আসনে আগামী জুলাইয়ে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানা যায়। নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব মো. হুমায়ুন কবীর খোন্দকার জানান, সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সিলেট ৩ আসনে উপ-নির্বাচনের তফসিল আগামী ২৪ মে ঘোষণা করা হবে।এদিকে, রবিবার (২৩ মে) দুপুরে দেশের নির্বাচন ব্যবস্থা ভেঙে পড়ার অভিযোগ তুলে সিলেট ৩ আসনসহ চারটি সংসদীয় আসনে আসন্ন উপনির্বাচনে অংশ না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএনপি। রাজধানীর গুলশানে দলের চেয়ারপারসন কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ সিদ্ধান্তের কথা জানান মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বিএনপি নির্বাচনে অংশ না নেয়ার সিদ্ধান্তের কারণে সিলেট ৩ আসনের উপনির্বাচনে লড়াই হবে আওয়ামী লীগ-জাতীয় পার্টির মধ্যে বলে ধারণ করছেন রাজনৈতিক মহল। তাদের মতে, সিলেট ৩ আসনে আওয়ামী লীগের পাশাপাশি জাতীয় পার্টির অবস্থান বেশ মজবুত। এই আসনে বিগত নির্বাচনগুলোতে এর প্রমাণ পাওয়া গেছে। সিলেট ৩ আসনে গত তিনটি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ বিজয়ী হলেও এর আগে বিএনপির পাশাপাশি ৩ বার জাতীয় পার্টির দখলে ছিলো এই আসনটি। সব মিলিয়ে জাতীয় পার্টিকে এ নির্বাচনে ছোট করে দেখার কোন অবকাশ নেই।

এ বিষয়ে সিলেট জেলা জাতীয় পার্টির সাবেক সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবীব মঈন সিলেট প্রতিদিনকে বলেন, বিএনপি নির্বাচনে না গেলে জাতীয় পার্টিকে যদি স্থানীয় ভাবে তারা সহযোগিতা করে তাহলে পার্টির জন্য এটা প্লাস পয়েন্ট আর না করলে কিছু না। তবে বর্তমান সরকারের প্রতি মানুষ ক্ষুব্ধ জানিয়ে আহসান হাবীব মঈন বলেন, ভোটাররা এবার জাতীয় পার্টিকেই ভোট দেবে।

এবারের উপনির্বাচনে জাতীয় পার্টির একাধিক মনোনয়ন প্রত্যাশীর নাম শোনা যাচ্ছে।এদের মধ্যে রয়েছেন দলটির প্রেসিডিয়াম সদস্য আলহাজ আতিকুর রহমান আতিক, নজরুল ইসলাম বাবুল, সিলেট জেলা জাতীয় পার্টির সদস্য সচিব উসমান আলী চেয়ারম্যান, হাজী তোফায়েল আহমদ সহ আরও কয়েকজন।

অপর দিকে, ক্ষমতাসিন আওয়ামী লীগ নিজেদের আসন ধরে রাখতে দিনরাত কাজ করে যাচ্ছে। নির্বাচনী মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন দলের ডজনখানেক মনোনয়ন প্রত্যাশী নেতা। এদের মধ্যে রয়েছেন- সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য হাবিবুর রহমান হাবিব, আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, বিএমএ’র কেন্দ্রীয় মহাসচিব ডা. এহতেশামুল হক চৌধুরী দুলাল, দক্ষিণ সুরমা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবু জাহিদ, প্রয়াত এমপি মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর স্ত্রী ফারজানা সামাদ চৌধুরী, সিলেট জেলা বারের পিপি এডভোকেট নিজাম উদ্দিন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ যুক্তরাজ্য ম্যানচেস্টার শাখার সাবেক সভাপতি স্যার এনাম উল ইসলাম, সাবেক সহকারী এর্টনী জেনারেল ও বাংলাদেশ এ্যাথলেটিক্স ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ও বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কার্যনির্বাহী সদস্য এডভোকেট আব্দুর রকিব মন্টু, ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক শাহ মুজিবুর রহমান জকন।

ক্ষমতাসীন দল বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের অধিক সংখক নেতা নৌকার প্রতিকের প্রত্যাশী হলেও দলের একধিক নেতাকর্মীর সাথে আলাপ করে জানা গেছে, যিনি কেন্দ্র থেকে নৌকা নিয়ে আসবেন তার পক্ষেই সবাই কাজ করবেন
এ প্রসঙ্গে নৌকা প্রতিকের অন্যতম দাবীদার সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য হাবিবুর রহমান হাবিব বলেন- দীর্ঘদিন থেকে আমি মাঠে থেকে কাজ করে যাচ্ছি,  দল যদি আমাকে মনোনয়ন দেয় তাহলে আমি নৌকা প্রতিক নিয়ে নির্বাচন করবো। দল আমাকে মনোনয়ন না দিলে যাকে মনোনয়ন দিবে তার পক্ষেই আমরা কাজ করতে প্রস্তুত।দক্ষিণ সুরমা, ফেঞ্চুগঞ্জ ও বালাগঞ্জ উপজেলা নিয়ে গঠিত সিলেট-৩ আসন। এ আসনটি সিলেট নগরীর কাছাকাছি এলাকায় গুরত্ব অনেক বেশি। এছাড়া শিল্পনগরী ফেঞ্চুগঞ্জও রয়েছে এ আসনে। ফলে গুরুত্বপূর্ণ এ আসনে নির্বাচিত হয়ে দক্ষতার সঙ্গে গত ৩ বার দায়িত্ব পালন করেছেন প্রয়াত এমপি মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী। বর্তমান সরকারের আন্তরিকতা প্রয়াত এমপি মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর দক্ষতার ফলে এই এলাকায় বিগত দিনে বেশ উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। তাই এবারের উপনির্বাচনটি সিলেট ৩ আসনের জন্য বেশ গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছেন সচেতন মহল। তাদের মতে গুরুত্বপূর্ণ এই আসনে উৎসবমুখর নির্বাচনের মাধ্যমে সংসদ সদস্য নির্বাচিত আসলে এলাকার উন্নয়ন হবে। বিএনপি নির্বাচনে না আসলেও আওয়ামী লীগ-জাতীয় পার্টির মধ্যেই নির্বাচনী লড়াই জমে উঠবে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© All rights reserved © 2021 sylheter kuj khobor.com
Theme Customized By BreakingNews