1. admin@sylheterkujkhobor.com : admin :
শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ০৩:০২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ঢাকায় শুক্রবার দুইজন নিহত: ডিএমপি কোটা আন্দোলন সরকার বিরোধী : দ্বায়িত্ব ছাড়লেন সিলেটের সমন্বয়ক ফুটবল বিশ্বে সবচেয়ে বেশি ট্রফির রাজা এখন মেসি দক্ষিণ সুরমা মোগলাবাজারে বিদ্যুৎ পৃষ্ট হয়ে ইলেকট্রিক মিস্ত্রির মৃ ত্যু হাওরে গোসল করতে গিয়ে শাশুড়ি ও অন্তঃসত্ত্বা পুত্রবধূর মৃত্যু লন্ডনে বসে মামলার হাজিরা দেন সিলেট কোর্টে খলিলের ফাঁস করা প্রশ্নে ৩ বিসিএস ক্যাডার, আতঙ্কে অন্যরাও বেরিয়ে আসছে থলের বিড়াল ব্যারিস্টার সুমনকে হত্যা নয় ফাঁদে ফেলে টাকা আদায় করতে চেয়েছিলেন সোহাগ ব্যারিস্টার সুমনকে ‘হ ত্যা র পরিকল্পনা’ : একজন পুলিশের জালে সিলেটে আগামী ৩ দিন ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা- আবহাওয়া অধিদপ্তর

জমি অধিগ্রহণের কারণে সিলেট-ঢাকা মহাসড়কের কাজ বিলম্বিত হচ্ছে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

সিলেটের খোঁজখবর
  • আপডেট সময় : শনিবার, ৪ নভেম্বর, ২০২৩
  • ৪৭ বার পঠিত

জমি অধিগ্রহণের কারণে সিলেট-ঢাকা মহাসড়কের কাজ বিলম্বিত হচ্ছে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন। তিনি শনিবার (৪ নভেম্বর) সিলেট-তামাবিল সড়কের সুরমা গেইট এলাকায় সিলেট-তামাবিল মহাসড়ক চার লেনে উন্নীতকরণ প্রকল্প প্যাকেজ -২ এর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা জানান।এসময় তিনি বলেন, সিলেট-ঢাকা মহাসড়কের ব্যয় ১৭ হাজার কোটি এবং সিলেট-তামাবিল মহাসড়কের ব্যয় ধরা হয়েছে প্রায় চার হাজার কোটি টাকা। তবে কাজ একটু দীর্ঘায়িত হচ্ছে কারণ অন্যের জায়গায়-জমি অধিগ্রহণ করতে দেরি হয়। স্থানীয় নেতৃত্ব ও মিডিয়াকে কাজ দেরি হওয়ার কারণ অনুসন্ধানের আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, কাজ দেরি হলে ব্যয়ও বেড়ে যাবে। উন্নয়ন কাজ সঠিকভাবে হচ্ছে কি না সেটা মনিটরিং করা দরকার- এ দায়িত্ব আপনাদের।পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন,-সিলেট-তামাবিল ৫৬.১৬ কিলোমিটার মহাসড়ক পৃথক এসএমভিটি লেনসহ চার লেনে উন্নীত হলে টেকসই, নিরাপদ যোগাযোগ ব্যবস্থা নিশ্চিত এবং সিলেট অঞ্চলের মানুষের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন হবে।পৃথক এসএমভিটি লেনসহ চার লেনে উন্নীতকরণ প্রকল্পের ফলে, দক্ষিণ এশিয়া জাতি গোষ্ঠীর মধ্যে উপ-আঞ্চলিক যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নের মাধ্যমে বাণিজ্য সম্প্রসারণ, বৈদেশিক ও দেশীয় বিনিযোগ বৃদ্ধিকরণ; প্রকল্প এলাকার মানুষের কর্মসংস্থান বৃদ্ধির মাধ্যমে জীবন জীবিকার মান উন্নয়ন; এ অঞ্চলের মানুষের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন এবং একটি নিরাপদ, টেকসই যোগাযোগ ব্যবস্থা নিশ্চিতকরণ হবে।এ প্রকল্পের আওতায় রয়েছে ৫টি সেতু, ২২টি কালভার্ট, ১১টি ফুটওভার ব্রীজ, ৭টি বাস স্ট্যান্ড, ৬টি ইউলুপ এবং একটি টোলপ্লাজা উন্নয়ন প্রকল্পটি ২০২৫ সালের জুন মাসে শেষ হওয়ায় কথা রয়েছে। প্রকল্পের সহযোগিতায় রয়েছে এশিয়ান ইনফ্রাস্ট্রাকচার ইনভেষ্টমেন্ট ব্যাংক (AIIB)।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর










x